Surah Ar Rahman Bangla Uccharon- আর রহমান বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ (2024)

সূরা আর রহমান বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ

সূরা আর রহমান (Surah Ar-Rahman)মদীনায় অবতীর্ণ - আয়াত ৭৮

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।

(1

الرَّحْمَـٰنُ

আররাহমা-নু।

করুনাময় আল্লাহ।

(2

عَلَّمَ الْقُرْآنَ

আল্লামাল কুরআ-ন।

শিক্ষা দিয়েছেন কোরআন,

(3

خَلَقَ الْإِنسَانَ

খালাকাল ইনছা-ন।

সৃষ্টি করেছেন মানুষ,

(4

عَلَّمَهُ الْبَيَانَ

আল্লামাহুল বায়া-ন।

তাকে শিখিয়েছেন বর্ণনা।

(5

الشَّمْسُ وَالْقَمَرُ بِحُسْبَانٍ

আশশামছুওয়ালকামারু বিহুছবা-ন।

সূর্য ও চন্দ্র হিসাবমত চলে।

(6

وَالنَّجْمُ وَالشَّجَرُ يَسْجُدَانِ

ওয়ান্নাজমুওয়াশশাজারু ইয়াছজূদা-ন।

এবং তৃণলতা ও বৃক্ষাদি সেজদারত আছে।

(7

وَالسَّمَاءَ رَفَعَهَا وَوَضَعَ الْمِيزَانَ

ওয়াছ ছামাআ রাফা-আহা-ওয়া ওয়াদা-আল মীঝা-ন।

তিনি আকাশকে করেছেন সমুন্নত এবং স্থাপন করেছেন তুলাদন্ড।

(8

أَلَّا تَطْغَوْا فِي الْمِيزَانِ

আল্লা-তাতাগাও ফিল মীঝা-ন।

যাতে তোমরা সীমালংঘন না কর তুলাদন্ডে।

(9

وَأَقِيمُوا الْوَزْنَ بِالْقِسْطِ وَلَا تُخْسِرُوا الْمِيزَانَ

ওয়া আকীমুল ওয়াঝনা বিলকিছতিওয়ালা-তুখছিরুল মীঝা-ন।

তোমরা ন্যায্য ওজন কায়েম কর এবং ওজনে কম দিয়ো না।

(10

وَالْأَرْضَ وَضَعَهَا لِلْأَنَامِ

ওয়াল আরদা ওয়া দা-আহা-লিলআনা-ম।

তিনি পৃথিবীকে স্থাপন করেছেন সৃষ্টজীবের জন্যে।

(11

فِيهَا فَاكِهَةٌ وَالنَّخْلُ ذَاتُ الْأَكْمَامِ

ফীহা-ফা-কিহাতুওঁ ওয়ান্নাখলুযা-তুল আকমা-ম।

এতে আছে ফলমূল এবং বহিরাবরণবিশিষ্ট খর্জুর বৃক্ষ।

(12

وَالْحَبُّ ذُو الْعَصْفِ وَالرَّيْحَانُ

ওয়াল হাব্বযুল:আসফি ওয়াররাইহা-ন।

আর আছে খোসাবিশিষ্ট শস্য ও সুগন্ধি ফুল।

(13

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অনুগ্রহকে অস্বীকার করবে?

(14

خَلَقَ الْإِنسَانَ مِن صَلْصَالٍ كَالْفَخَّارِ

খালাকাল ইনছা-না মিন সালসা-লিন কাল ফাখখা-র।

তিনি মানুষকে সৃষ্টি করেছেন পোড়া মাটির ন্যায় শুষ্ক মৃত্তিকা থেকে।

(15

وَخَلَقَ الْجَانَّ مِن مَّارِجٍ مِّن نَّارٍ

ওয়া খালাকাল জান্না মিম্মা-রিজিমমিন্না-র।

এবং জিনকে সৃষ্টি করেছেন অগ্নিশিখা থেকে।

(16

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অনুগ্রহ অস্বীকার করবে?

(17

رَبُّ الْمَشْرِقَيْنِ وَرَبُّ الْمَغْرِبَيْنِ

রাব্বুল মাশরিকাইনি ওয়া রাব্বুল মাগরিবাইন।

তিনি দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচলের মালিক।

(18

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(19

مَرَجَ الْبَحْرَيْنِ يَلْتَقِيَانِ

মারাজাল বাহরাইনি ইয়ালতাকিয়া-ন।

তিনি পাশাপাশি দুই দরিয়া প্রবাহিত করেছেন।

(20

بَيْنَهُمَا بَرْزَخٌ لَّا يَبْغِيَانِ

বাইনাহুমা-বারঝখুল লা-ইয়াবগিয়া-ন।

উভয়ের মাঝখানে রয়েছে এক অন্তরাল, যা তারা অতিক্রম করে না।

(21

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(22

يَخْرُجُ مِنْهُمَا اللُّؤْلُؤُ وَالْمَرْجَانُ

ইয়াখরুজূমিনহুমাল লু’লূউ ওয়াল মার জা-ন।

উভয় দরিয়া থেকে উৎপন্ন হয় মোতি ও প্রবাল।

(23

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবান।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(24

وَلَهُ الْجَوَارِ الْمُنشَآتُ فِي الْبَحْرِ كَالْأَعْلَامِ

ওয়ালাহুল জাওয়া-রিল মুনশাআ-তুফিল বাহরি কালআলা-ম।

দরিয়ায় বিচরণশীল পর্বতদৃশ্য জাহাজসমূহ তাঁরই (নিয়ন্ত্রনাধীন)

(25

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(26

كُلُّ مَنْ عَلَيْهَا فَانٍ

কুল্লমান ‘আলাইহা-ফা-নিওঁ।

ভূপৃষ্টের সবকিছুই ধ্বংসশীল।

(27

وَيَبْقَىٰ وَجْهُ رَبِّكَ ذُو الْجَلَالِ وَالْإِكْرَامِ

ওয়া ইয়াবকা-ওয়াজহু রাব্বিকা যুল জালা-লি ওয়াল ইকরাম।

একমাত্র আপনার মহিমায় ও মহানুভব পালনকর্তার সত্তা ছাড়া।

(28

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(29

يَسْأَلُهُ مَن فِي السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ ۚ كُلَّ يَوْمٍ هُوَ فِي شَأْنٍ

ইয়াছআলুহূমান ফিছ ছামা-ওয়া-তি ওয়াল আরদি কুল্লা ইয়াওমিন হুওয়া ফী শা’ন।

নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের সবাই তাঁর কাছে প্রার্থী। তিনি সর্বদাই কোন না কোন কাজে রত আছেন।

(30

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(31

سَنَفْرُغُ لَكُمْ أَيُّهَ الثَّقَلَانِ

ছানাফরুগু লাকুম আইয়ুহাছছাকালা-ন।

হে জিন ও মানব! আমি শীঘ্রই তোমাদের জন্যে কর্মমুক্ত হয়ে যাব।

(32

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(33

يَا مَعْشَرَ الْجِنِّ وَالْإِنسِ إِنِ اسْتَطَعْتُمْ أَن تَنفُذُوا مِنْ أَقْطَارِ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ فَانفُذُوا ۚ لَا تَنفُذُونَ إِلَّا بِسُلْطَانٍ

ইয়া-মাশারাল জিন্নি ওয়াল ইনছি ইনিছতাতা-তুম আন তানফুযূমিন আকতা-রিছ ছামাওয়া-তি ওয়াল আরদিফানফুযূ লা-তানফুযূনা ইল্লা-বিছুলতা-ন।

হে জিন ও মানবকূল, নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের প্রান্ত অতিক্রম করা যদি তোমাদের সাধ্যে কুলায়, তবে অতিক্রম কর। কিন্তু ছাড়পত্র ব্যতীত তোমরা তা অতিক্রম করতে পারবে না।

(34

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(35

يُرْسَلُ عَلَيْكُمَا شُوَاظٌ مِّن نَّارٍ وَنُحَاسٌ فَلَا تَنتَصِرَانِ

ইউরছালু আলাইকুমা-শুওয়া-জুম মিন্না-রিওঁ ওয়া নুহা-ছুন ফালা-তানতাসিরা-ন।

ছাড়া হবে তোমাদের প্রতি অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ও ধুম্রকুঞ্জ তখন তোমরা সেসব প্রতিহত করতে পারবে না।

(36

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(37

فَإِذَا انشَقَّتِ السَّمَاءُ فَكَانَتْ وَرْدَةً كَالدِّهَانِ

ফাইযান শাককাতিছ ছামাউ ফাকা-নাত ওয়ারদাতান কাদ্দিহা-ন।

যেদিন আকাশ বিদীর্ণ হবে তখন সেটি রক্তবর্ণে রঞ্জিত চামড়ার মত হয়ে যাবে।

(38

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(39

فَيَوْمَئِذٍ لَّا يُسْأَلُ عَن ذَنبِهِ إِنسٌ وَلَا جَانٌّ

ফাইয়াওমা ইযিল্লা-ইউছআলু-আন যামবিহী ইনছওঁ ওয়ালা-জান।

সেদিন মানুষ না তার অপরাধ সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হবে, না জিন।

(40

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(41

يُعْرَفُ الْمُجْرِمُونَ بِسِيمَاهُمْ فَيُؤْخَذُ بِالنَّوَاصِي وَالْأَقْدَامِ

ইউরাফুল মুজরিমূনা বিছীমা-হুম ফাইউ’খাযুবিন্নাওয়া-ছী ওয়াল আকদা-ম।

অপরাধীদের পরিচয় পাওয়া যাবে তাদের চেহারা থেকে; অতঃপর তাদের কপালের চুল ও পা ধরে টেনে নেয়া হবে।

(42

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(43

هَـٰذِهِ جَهَنَّمُ الَّتِي يُكَذِّبُ بِهَا الْمُجْرِمُونَ

হা-যিহী জাহান্নামুল্লাতী ইউকাযযি বুবিহাল মুজরিমূন।

এটাই জাহান্নাম, যাকে অপরাধীরা মিথ্যা বলত।

(44

يَطُوفُونَ بَيْنَهَا وَبَيْنَ حَمِيمٍ آنٍ

ইয়াতূ ফূনা বাইনাহা-ওয়া বাইনা হামীমিন আ-ন।

তারা জাহান্নামের অগ্নি ও ফুটন্ত পানির মাঝখানে প্রদক্ষিণ করবে।

(45

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(46

وَلِمَنْ خَافَ مَقَامَ رَبِّهِ جَنَّتَانِ

ওয়া লিমান খা-ফা মাকা-মা রাব্বিহী জান্নাতা-ন।

যে ব্যক্তি তার পালনকর্তার সামনে পেশ হওয়ার ভয় রাখে, তার জন্যে রয়েছে দু’টি উদ্যান।

(47

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবান।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(48

ذَوَاتَا أَفْنَانٍ

যাওয়া- তা আফনা-ন ।

উভয় উদ্যানই ঘন শাখা-পল্লববিশিষ্ট।

(49

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(50

فِيهِمَا عَيْنَانِ تَجْرِيَانِ

ফীহিমা-‘আইনা-নি তাজরিয়া-ন। ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

উভয় উদ্যানে আছে বহমান দুই প্রস্রবন।

(51

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(52

فِيهِمَا مِن كُلِّ فَاكِهَةٍ زَوْجَانِ

ফীহিমা-মিন কুল্লি ফা-কিহাতিন ঝাওজা-ন।

উভয়ের মধ্যে প্রত্যেক ফল বিভিন্ন রকমের হবে।

(53

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(54

مُتَّكِئِينَ عَلَىٰ فُرُشٍ بَطَائِنُهَا مِنْ إِسْتَبْرَقٍ ۚ وَجَنَى الْجَنَّتَيْنِ دَانٍ

মুত্তাকিঈনা ‘আলা-ফুরুশিম বাতাইনুহা-মিন ইছতাবরাকিও ওয়া জানাল জান্নাতাইনি দা-

তারা তথায় রেশমের আস্তরবিশিষ্ট বিছানায় হেলান দিয়ে বসবে। উভয় উদ্যানের ফল তাদের নিকট ঝুলবে।

(55

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(56

فِيهِنَّ قَاصِرَاتُ الطَّرْفِ لَمْ يَطْمِثْهُنَّ إِنسٌ قَبْلَهُمْ وَلَا جَانٌّ

ফীহিন্না কা-সিরা-তুত্তারফি লাম ইয়াতমিছহুন্না ইনছুন কাবলাহুম ওয়ালা-জান।

তথায় থাকবে আনতনয়ন রমনীগন, কোন জিন ও মানব পূর্বে যাদের ব্যবহার করেনি।

(57

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(58

كَأَنَّهُنَّ الْيَاقُوتُ وَالْمَرْجَانُ

কাআন্নাহুন্নাল ইয়াকূতুওয়াল মারজান-ন।

প্রবাল ও পদ্মরাগ সদৃশ রমণীগণ।

(59

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(60

هَلْ جَزَاءُ الْإِحْسَانِ إِلَّا الْإِحْسَانُ

হাল জাঝাউল ইহছা-নি ইল্লাল ইহছা-ন।

সৎকাজের প্রতিদান উত্তম পুরস্কার ব্যতীত কি হতে পারে?

(61

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(62

وَمِن دُونِهِمَا جَنَّتَانِ

ওয়া মিন দূনিহিমা-জান্নাতা-ন।

এই দু’টি ছাড়া আরও দু’টি উদ্যান রয়েছে।

(63

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(64

مُدْهَامَّتَانِ

মুদ হূম মাতা-ন।

কালোমত ঘন সবুজ।

(65

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(66

فِيهِمَا عَيْنَانِ نَضَّاخَتَانِ

ফীহিমা-‘আইনা-নি নাদ্দাখাতা-ন।

তথায় আছে উদ্বেলিত দুই প্রস্রবণ।

(67

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(68

فِيهِمَا فَاكِهَةٌ وَنَخْلٌ وَرُمَّانٌ

ফীহিমা-ফা-কিহাতুওঁ ওয়া নাখলুওঁ ওয়ারুম্মা-ন।

তথায় আছে ফল-মূল, খর্জুর ও আনার।

(69

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(70

فِيهِنَّ خَيْرَاتٌ حِسَانٌ

ফীহিন্না খাইরা-তুন হিছা-ন।

সেখানে থাকবে সচ্চরিত্রা সুন্দরী রমণীগণ।

(71

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(72

حُورٌ مَّقْصُورَاتٌ فِي الْخِيَامِ

হূরুমমাকসূরা-তুন ফিল খিয়া-ম৷

তাঁবুতে অবস্থানকারিণী হুরগণ।

(73

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা-তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(74

لَمْ يَطْمِثْهُنَّ إِنسٌ قَبْلَهُمْ وَلَا جَانٌّ

লাম ইয়াতমিছহুন্না ইনছুন কাবলাহুম ওয়ালা-জান।

কোন জিন ও মানব পূর্বে তাদেরকে স্পর্শ করেনি।

(75

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(76

مُتَّكِئِينَ عَلَىٰ رَفْرَفٍ خُضْرٍ وَعَبْقَرِيٍّ حِسَانٍ

মুত্তাকিঈনা ‘আলা-রাফরাফিন খুদরিওঁ ওয়া ‘আবকারিইয়িন হিছা-ন।

তারা সবুজ মসনদে এবং উৎকৃষ্ট মূল্যবান বিছানায় হেলান দিয়ে বসবে।

(77

فَبِأَيِّ آلَاءِ رَبِّكُمَا تُكَذِّبَانِ

ফাবিআইয়ি আ-লাই রাব্বিকুমা- তুকাযযিবা-ন।

অতএব, তোমরা উভয়ে তোমাদের পালনকর্তার কোন কোন অবদানকে অস্বীকার করবে?

(78

تَبَارَكَ اسْمُ رَبِّكَ ذِي الْجَلَالِ وَالْإِكْرَامِ

তাবা-রাকাছমুরাব্বিকা যিল জালা-লি ওয়াল ইকরা-ম।

কত পূণ্যময় আপনার পালনকর্তার নাম, যিনি মহিমাময় ও মহানুভব।

-------

Tags: surah ar rahman, surah ar rahman bangla, surah rahman, surah rahman bangla, surah ar rahman with bangla translation, surah ar rahman bangla uccharon, surah yasin bangla uccharon, surah rahman bangla uccharon, ar rahman surah, surah ar-rahman, surah rahman bangla uccharan shah, surah ar rahman bangla translation, new version surah ar rahman, surah rahman bangla ucharan, surah ar rahman nice voice, sura ar rahman, quran recitation surah ar rahman, sura ar rahman bangla,

সূরা আর রহমান বাংলা উচ্চারণ, সূরা আর রহমান, আর রহমান বাংলা অনুবাদ, আর রহমান, সুরা আর রহমান বাংলা উচ্চারণ সহ, সূরা রহমান বাংলা উচ্চারণ, সূরা আর রহমান আরবি বাংলা উচ্চারণ, সূরা আর রহমান বাংলা, সূরা আর রহমান বাংলা অর্থসহ, সূরা আর রহমান বাংলা অনুবাদ, সুরা আর রহমান, সূরা রহমান বাংলা উচ্চারণ সহ, সূরা আর রহমান বাংলা উচ্চারণ সহ, সুরা আর রহমান বাংলা, সূরা আর রহমান বাংলা উচ্চারণ ও অনুবাদ, সূরা আর রহমান বাংলা অনুবাদ সহ, সূরা আল রহমান বাংলা উচ্চারণ, সূরা রহমান, সূরা রহমান বাংলা অর্থসহ

Surah Ar Rahman Bangla Uccharon- আর রহমান বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ (2024)
Top Articles
Latest Posts
Article information

Author: Fr. Dewey Fisher

Last Updated:

Views: 6371

Rating: 4.1 / 5 (42 voted)

Reviews: 89% of readers found this page helpful

Author information

Name: Fr. Dewey Fisher

Birthday: 1993-03-26

Address: 917 Hyun Views, Rogahnmouth, KY 91013-8827

Phone: +5938540192553

Job: Administration Developer

Hobby: Embroidery, Horseback riding, Juggling, Urban exploration, Skiing, Cycling, Handball

Introduction: My name is Fr. Dewey Fisher, I am a powerful, open, faithful, combative, spotless, faithful, fair person who loves writing and wants to share my knowledge and understanding with you.